সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

ramadan-kareem.jpg

রমজান আসছে সংযম অপরিহার্য

সারা বছরে যা ব্যবসা হয়নি এই এক মাসেই তা পুরোটাই উসুল করে নিবেন বলে অনেকের পরিকল্পনা। এটা করতে গিয়ে মানুষকে কি পরিমানে ঠকাচ্ছে তারা সেটার কোনো হুশ নেই। কিন্তু তার ধর্ম নিয়ে একটু খোচা দিয়ে দেখেন - কার এত সাহস?

যারা ধর্মে বিশ্বাস করেন তারা সবাই এর আবশ্যকতা জানেন কিনা বলা মুশকিল। তবে আমাদের ব্যক্তি থেকে শুরু করে সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় সব স্তরেই যে অন্যায় অবিচার প্রতিনিয়ত হচ্ছে, তাতে এটা খুব সুস্পষ্টভাবে বোঝা যায় যে ধর্ম আসলেই আমাদের জীবনে কোনো পরিবর্তন আনতে পারেনি। কিন্তু কাউকে একবার বিধর্মী বলে দেখেন আপনার কি হাল হয়!

রমজান আসছে বলে ব্যবসায়ীদের চিন্তার ধরণ বদলে গেছে। সারা বছরে যা ব্যবসা হয়নি এই এক মাসেই তা পুরোটাই উসুল করে নিবেন বলে অনেকের পরিকল্পনা। এটা করতে গিয়ে মানুষকে কি পরিমানে ঠকাচ্ছে তারা সেটার কোনো হুশ নেই। কিন্তু তার ধর্ম নিয়ে একটু খোচা দিয়ে দেখেন - কার এত সাহস?

আমাদের রাজনীতিবিদরা পুরো রমজান জুড়ে ইফতার পার্টি করবেন, অনেকে এই মাসে লেবাসও একটু পরিবর্তন করবেন, দু চারটে ধর্মীয় গুরু গম্ভীর কোথাও শোনা যাবে কারো কারো মুখে। কিন্তু সবাই জানেন এগুলো স্রেফ ভন্ডামি।

যুগে যুগে পৃথিবীতে যত ধর্ম এসেছে তার সবগুলোর মূলমন্ত্র কিন্তু একটাই - মানবিকতার প্রকাশ। এই একটি জিনিসের ঘাটতি আমরা টের পাচ্ছি হাড়ে হাড়ে। দুর্নীতি, অস্বচ্ছতা, অন্যায় আমাদের জীবনকে অতিষ্ঠ করে তুলেছে। কিন্তু এই রোজার মাসে মসজিদে জায়গা পাওয়া যাবে না ধার্মিকদের ভিড়ে। এত ধার্মিকের এই দেশে অন্যায় কিভাবে এতটা প্রকাশ্য ও প্রতিষ্ঠিত হতে পারে!

ইতিহাস জুড়ে অধিকাংশ মানুষ ধর্মকে ব্যবহার করেছে কোনো ব্যক্তি সুবিধা আদায়ের ঢাল হিসেবে। রাস্তায় যে লোকটি টুপি মাথায় দিয়ে খেজুর বিক্রি করেন সে খুব ভালো করেই জানেন যে এটা আসলে বিক্রি বাড়ানোর একটা কৌশল। লেবাসধারী রাজনীতিবিদও জানেন এটা দিয়ে তিনি নির্বাচনে একটু বেশি ভোট পেতে পারেন।

আমাদের মতো সাধারণ মানুষের ক্ষমতা নেই এই রাষ্ট্র যন্ত্রে কোনো প্রভাব ফেলে এই দেশকে দুর্নীতি বা অন্যায় মুক্ত করা। কিন্তু আমরা ব্যক্তি পর্যায়ে হয়তো কিছু সংশোধন আনতে পারি। আমরা যদি কোনো অপচয় করি সেটা বাদ দেয়ার চেষ্টা করা যেতে পারে। অন্যের অন্যায় ঠেকাতে না পারলেও নিজের দ্বারা যেনো কোনো অন্যায় সাধন না হয় সে ব্যাপারে সচেষ্ট হতে পারি।

যদি ঠান্ডা মাথায় একবার ভাবেন, তাহলে দেখবেন আমাদের পুরো জাতির মধ্যে ধৈর্য্য, সহিষ্ণুতা, সংযমের খুবই অভাব। রোজা কিন্তু এই গুনগুলো চর্চা করানোর জন্যেই আসে।

এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

Ramadan, Kareem, spirit, Kindness, profit, business, Religious, Islam, Muslim