সংস্করণ: ২.০১

স্বত্ত্ব ২০১৪ - ২০১৭ কালার টকিঙ লিমিটেড

blood-donation-during-ramadan.jpg

রক্ত দিন, প্রাণ বাঁচান রোজা রেখে রক্তদান করলে কি আসলেই রোজা ভঙ্গ হয়?

আপনার দেয়া রক্তে বাঁচতে পারে একজন মানুষের প্রাণ। বাঁচতে পারে একটি পরিবার, একটি সম্পর্ক। তাই রোজা হলেও রক্তদানে অবহেলা করবেন না। সুস্থ থাকলে, প্রয়োজনে অবশ্যই রোজা রেখেই রক্তদান করবেন।

সমাজে তো কত রকমের ই মানুষ আছে। তবে তাদের মাঝে বিশেষ একদল আছে যাদের বলা হয় রক্তদাতা। হুম, মানুষকে মৃত্যুর পথ থেকে ফেরানোর মত মহান কাজটি তারা করে থাকেন নিজের মনুষ্যত্বকে কাজে লাগিয়ে। তিন মাস পরপর রক্ত দেয়াই যেন তাদের কাজ। রক্তের প্রয়োজনে একে অপরকে রক্ত দিতে গিয়ে হয়ত তৈরি হয়ছে কত পাওয়া না পাওয়ার গল্প! 

কিন্তু, রমজান এলে কেন জানি ভাটা পড়ে যায় রক্তদাতাদের সংখ্যার। ফরজ রোজা ভাঙার ভয়ে অনেকেই রক্ত দিতে চান না। আসলেই কি রক্তদান করলে রোজা ভেঙে যায়? আসুন তবে জেনে নেই আসলেই রক্ত দান করলে রোজা ভঙ্গ হয় কিনা।

অনেকেই মনে করেন রোজা রেখে রক্তদান করলে রোজা নষ্ট হয়ে যায়। আসলে এতে রোজার কোন ক্ষতি হয় না বা রোজা ভঙ্গ হয়না। 

রোজার সময় রক্তদান সম্পর্কে বায়তুল মোকাররম মসজিদের পেশ ঈমাম সাহেব হাফেজ মুফতি মুহিবুল্লাহিল বাকী নদভী বলেছেন:
'পবিত্র কোরআন শরিফে বলা হয়েছে, ‘যে ব্যাক্তি একজন মানুষের জীবন রক্ষা করল, সে যেন সমগ্র মানব জাতির জীবন রক্ষা করল' ( সূরা মায়েদা: ৩২)’

তাহলে এই আয়াত থেকে বুঝা যাচ্ছে যে আপনি যদি আপনার রক্তদানের মাধ্যমে কোন মানুষের জীবন রক্ষা করে থাকেন, তাহলে যেন পুরো মানব সমাজকে রক্ষা করলেন। আল্লাহ্‌ পাক যেন আমাদের রক্তদানের মাধ্যমে মানুষের খেদমত করার তউফিক দান করেন।

বিশেষ করে রোজাদার ব্যাক্তির মনের মধ্যে এই সন্দেহ থাকা উচিত নয় যে রক্তদান করলেই রোজা ভেঙ্গে যাবে। আপনি রোজা অবস্থায় রক্ত দিলে রোজা ভাঙবে না, বরং রোজার সওয়াবও পাবেন; এবং রক্তদানের ত্যাগের মাধ্যমে যে একজন মানুষের জীবন বাঁচালেন, এর সওয়াবও পাবেন। শুধুমাত্র আপনাকে ডাক্তার যদি বলে আপনি অসুস্থ, রক্ত দেয়া যাবে না, সেই অবস্থা ছাড়া রোজা রেখেও রক্তদান করা যাবে।

উপরোক্ত কথাতেও যদি আপনি তেমন একটা আস্থা না পেয়ে থাকেন, তাহলে 'রোজায় রক্তদান' এটা লিখে গুগল এ সার্চ দিন... শত শত রেফারেন্স পাবেন, যাচাই করে নিন।

তারপরও যদি আপনি বিশ্বাস করেন যে, রক্তদান করলে রোজা ভেঙ্গে যায়, তাহলে ৩০ রোজার মাঝে ১ টা রোজা না হয় ভেঙ্গেই গেল, তারপরও তো একজন মানুষকে বাঁচাতে পারলেন! এবং একজন মানুষ বাঁচানোর ফলে আপনার কিছুটা হলেও সওয়াবই হবে।

তবে হ্যা রোগীকে একবার জিজ্ঞেস করে নিবেন সন্ধ্যায় ইফতারের পর রক্তদান করলে হবে কিনা। যদি খুব বেশি জরুরি না হয়, তাহলে ইফতারের পরে রক্তদান করবেন।

আপনার দেয়া রক্তে বাঁচতে পারে একজন মানুষের প্রাণ। বাঁচতে পারে একটি পরিবার, একটি সম্পর্ক। তাই রোজা হলেও রক্তদানে অবহেলা করবেন না। সুস্থ থাকলে, প্রয়োজনে অবশ্যই রোজা রেখেই রক্তদান করবেন।

প্রয়োজনীয় তথ্য:
যেকোন সময় রক্তের প্রয়োজনে ভিজিট করতে পারেন DonateBloodBD.com এই ওয়েবসাইট টি। প্রায় ২৫০০+ রক্তদাতার সন্ধান পাবেন সেখানে। রক্তের অভাবে যেন আর একটিও প্রান না ঝরে যায়। 

বিশেষ কৃতজ্ঞতা: শুভ (ফাউন্ডার, DonateBloodBD.com )


এখানে প্রকাশিত প্রতিটি লেখার স্বত্ত্ব ও দায় লেখক কর্তৃক সংরক্ষিত। আমাদের সম্পাদনা পরিষদ প্রতিনিয়ত চেষ্টা করে এখানে যেন নির্ভুল, মৌলিক এবং গ্রহণযোগ্য বিষয়াদি প্রকাশিত হয়। তারপরও সার্বিক চর্চার উন্নয়নে আপনাদের সহযোগীতা একান্ত কাম্য। যদি কোনো নকল লেখা দেখে থাকেন অথবা কোনো বিষয় আপনার কাছে অগ্রহণযোগ্য মনে হয়ে থাকে, অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে বিস্তারিত লিখুন।

blood, Donation, Ramadan, thoughts, decide, Save, life